শ্রীমঙ্গল থেকে সম্প্রচার “সিনেমা টক”

সামি রহমান, বিনোদন ডেস্ক

433
প্রতিষ্ঠাতা- কে. এ. রহমান,অতিথি- মৃদুল মামুন ও সঞ্চালক- অভিষেক সিংহ।(বা থেকে)

চায়ের রাজধানী খ্যাত শ্রীমঙ্গল চায়ের গন্ধে যেমন সতেজ, তেমনি সতেজ শিল্প সংস্কৃতি সমৃদ্ধ শহর হিসেবে। উপজেলা শহর হলেও এ অঞ্চলের মানুষ অত্যান্ত শিল্পপ্রেমী এবং সংস্কৃতি সচেতন। একই ধারাবাহিকতায় শ্রীমঙ্গল এর কিছু উদ্যমী তরুণ-তরুণীর পরিশ্রমে গড়ে ওঠে “শ্রীমঙ্গল চলচ্চিত্র সংসদ” যা এস.এফ.এস নামে স্থানীয়দের কাছে পরিচিত। সম্প্রতি তারা সংগঠনটির ফেসবুক পেজে “সিনেমা টক” নামে চলচ্চিত্র বিষয়ক সরাসরি লাইভ আড্ডার আয়োজন করে। গত ১১ জুলাই, রাত ৮টায় তাদের প্রথম লাইভ অনুষ্ঠানটির সম্প্রচার শুরু হয়ে রাত প্রায় ১২ টায় সফল ভাবে সম্পন্ন হয়।

উক্ত আড্ডায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রামাণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা, লেখক ও সংগঠক “মৃদুল মামুন”। উল্লেখ্য তিনি “বাংলাদেশ প্রামাণ্যচিত্র পর্ষদ” এবং “বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম”-এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক। অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনায় ছিলেন এস.এফ.এস’র “লোকজ সংস্কৃতি প্রকল্পের” প্রধান নির্বাহী পরিচালক “অভিষেক সিংহ”। লাইভ অনুষ্ঠানটি পরিচালনায় কারিগরি সহযোগিতা করেন এস.এফ.এস’র “এক মিনিট চলচ্চিত্র প্রকল্পের” প্রধান নির্বাহী পরিচালক “কাজী এ.আর. শুভ”।

পুরো অনুষ্ঠানটি সাজানো হয়েছিল তিনটি ভাগে।

  • প্রথম ভাগে ছিল নির্মাতা মৃদুল মামুন’র নির্মাতা হয়ে ওঠার পেছনের গল্প।
  • দ্বিতীয় ভাগে প্রদর্শন করা হয় তাঁর নির্মিত তিনটি চলচ্চিত্রের অংশবিশেষ।
  • তৃতীয় এবং শেষ ভাগে নির্মাতা মৃদুল মামুন’র নির্মাণাধীন চলচ্চিত্র এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সহ অন্যান্য বিষয় আড্ডায় উঠে আসে।

লাইভে যুক্ত দর্শকদের নানাবিধ অভিমত এবং প্রশ্নউত্তরে পূর্ব নির্ধারিত দুই ঘন্টার অনুষ্ঠানটি শেষ হতে সময় লাগে তিন ঘণ্টার অধিক। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে এস.এফ.এস’র প্রতিষ্ঠাতা “কে.এ. রহমান সুজন” লাইভে যুক্ত হন। তিনি এস.এফ.এস পরিবারের পক্ষ থেকে নির্মাতা মৃদুল মামুন-কে অভিবাদন জানান ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আরো বলেন “করোনা পরবর্তী সময়ে এস.এফ.এস চলচ্চিত্র নির্মাণ নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে কর্মশালা আয়োজন এবং নিয়মিতভাবে চলচ্চিত্র উৎসব করার চেষ্টা করবে। এতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।“

নির্মাতা মৃদুল মামুন নির্মিত জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে পুরস্কারপ্রাপ্ত “কবুতরবাজ”, “সবাই একজাত” এবং “গতিপট” প্রামাণ্য চলচ্চিত্র তিনটির অংশবিশেষ লাইভ আড্ডায় দেখানো হয়।

প্রায় চার ঘন্টার জমজমাট আড্ডার পর সঞ্চালক ‘অভিষেক সিংহ ’ অতিথি এবং দর্শকের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আরো বলেন “আগামীতে নতুন অতিথি এবং চলচ্চিত্রের নানাবিধ বিষয় নিয়ে এস.এফ.এস লাইভ আড্ডার আয়োজন করবে।”